সল্ট হারভেস্টিং কাকে বলে | খাবার লবণ কিভাবে প্রস্তুত করা হয় | খাবার লবণের ব্যবহার

খাবার লবণ কিভাবে প্রস্তুত করা হয়
সল্ট হারভেস্টিং কাকে বলে

সমুদ্রের পানিতে অনেক বেশি পরিমাণে খাদ্য লবন থাকে। সমুদ্র উপকূলের লবণ চাষীরা বিভিন্ন আকৃতির বর্গাকার বাগানের জমির চারপাশে বাঁধ নির্মাণ করে খানিকটা খুলে রাখে। জোয়ারের সময় যখন পানি ওই জায়গায় প্রবেশ করে তখন পানির প্রবেশের মুখ বন্ধ করে জোয়ারের পানি আটকে দেওয়া হয়। যখন ওই পানি সূর্যের তাপে শুকিয়ে যায় তখন ওই জায়গায় লবণ দেখতে পাওয়া যায়। এটাকে সল্ট হারভেস্টিং বলে।

সল্ট হার্ভেস্টিং এর মাধ্যমে পাওয়া লবণের সাথে বালু মিশ্রিত থাকে। এই লবণ কে কোন পাত্রে নিয়ে পানি মেশালে লবণ পানিতে দ্রবীভূত হয়ে যায় কিন্তু বালু পাত্রের তলায় পড়ে থাকে। তখন লবণ পানির দ্রবণকে থেকে আলাদা করে নেওয়া হয়। এবার এই দ্রবনকে তাপ প্রয়োগ করলে পানি‌ বাষ্পীভূত হয়ে উড়ে যায় এবং লবণ পাত্রের তলায় পড়ে থাকে। উৎপন্ন এই লবণকে শিল্প-কারখানায় বিভিন্ন প্রক্রিয়া সম্পাদন করে খাবার উপযোগী খাদ্য লবণে পরিণত করা হয়।

খাবার লবণের (NaCl) ব্যবহার :-

*ভাতের সাথে আমরা তরকারি খাই । তরকারি তে খাবার লবণ না দিলে তরকারি সুস্বাদু হয় না।

*শিল্প-কারখানায় সোডিয়াম হাইড্রোক্সাইড (NaOH) যৌগ প্রস্তুত করার জন্য খাবার লবণ সোডিয়াম ক্লোরাইড (NaCl) ব্যবহার করা হয়।

*ডায়রিয়া বা পানি শূন্যতা পূরণের জন্য ঔষধ শিল্পে স্যালাইন এর মধ্যে খাবার লবণ ব্যবহার হয়।

*ট্যানারি শিল্পের (চামড়া শিল্প) সোডিয়াম ক্লোরাইড (NaCl) ব্যবহার করা হয়।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url